খুলনা কাস্টমস্ কমিশনারেটের অধীনে রয়েছে ১১ টি জেলাসহ তিনটি স্টেশন

follow-upnews
0 0

কাস্টমস্, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট, খুলনা জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের অধীন বৃহত্তর এলাকাধীন একটি কমিশনারেট। ১৯৯২ সালে শুল্ক ও আবগারী, খুলনা কালেক্টরেট ভেঙ্গে কাস্টমস্, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট, খুলনা সৃষ্টি হয়। পরবর্তীতে ২০১১ সালের ২০ ডিসেম্বর মূসক বিভাগের প্রশাসনিক বিভাজনের ফলে কাস্টমস্, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট, খুলনা পুনর্গঠিত হয়। এ কমিশনারেট পুনর্গঠিত হওয়ার পর হতে সুনামের সাথে রাজস্ব আদায়ের কাজ করে যাচ্ছে। খুলনা শহরের খালিশপুর শিল্প এলাকায় নিজস্ব ভবনে এ দপ্তরের অবস্থান। খুলনা কাস্টমস্ কমিশনারেটের অধীনে রয়েছেঃ

১. কাস্টমস্, এক্সাইজ ও ভ্যাট বিভাগ, খুলনা; ২. কাস্টমস্, এক্সাইজ ও ভ্যাট বিভাগ, সাতক্ষীরা; ৩. কাস্টমস্, এক্সাইজ ও ভ্যাট বিভাগ, পিরোজপুর; ৪. কাস্টমস্, এক্সাইজ ও ভ্যাট বিভাগ, মাদারীপুর; ৫. কাস্টমস্, এক্সাইজ ও ভ্যাট বিভাগ, শরিয়তপুর; ৬. কাস্টমস্, এক্সাইজ ও ভ্যাট বিভাগ, পটুয়াখালী; ৭. কাস্টমস্, এক্সাইজ ও ভ্যাট বিভাগ, বরিশাল; ৮. কাস্টমস্, এক্সাইজ ও ভ্যাট বিভাগ, ভোলা; ৯. কাস্টমস্, এক্সাইজ ও ভ্যাট বিভাগ, ঝালকাঠি; ১০. কাস্টমস্, এক্সাইজ ও ভ্যাট বিভাগ, বরগুনা; ১১. কাস্টমস্, এক্সাইজ ও ভ্যাট বিভাগ, বাগেরহাট; ১২. এলসি ‍স্টেশন, ভোমরা; ১৩. পায়রা কাস্টম হাউস; ১৪. আংটিহারা এলসি স্টেশন, আংটিহারা, কয়রা, খুলনা

খুলনা কমিশনারেটে বর্তমানে কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন সৈয়দ আতিকুর রহমান। তিনি ২১ বিসিএস-এর একজন কর্মকর্তা। পড়াশুনা করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একাউন্টিং বিভাগে।

খুলনা কমিশনারেটের অধীনে মোট কর্মকর্তা কর্মচারীর সংখ্যা ৮৪৯ জন।

খুলনা কাস্টমস্ কমিশনারেট

Next Post

দুর্নীতির আখড়া খুলনা জেলা পরিষদ

অনেক আগে থেকেই খুলনা জেলা পরিষদ ব্যক্তিকেন্দ্রিক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। তিনজন ব্যক্তি সমগ্র প্রতিষ্ঠানটিকে একচ্ছত্রভাবে চালাচ্ছেন। কৌশল করে পরিষদ সদস্যদের কোনো ভূমিকা রাখতে দেওয়া হচ্ছে না। খুব শীঘ্রই খুলনা জেলা পরিষদের দুর্নীতির সমগ্র চিত্র তুলে ধরা হবে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে জেলা পরিষদের একজন সদস্য এই প্রতিবেদককে জানিয়েছেন, দু’জন […]
খুলনা